পিকনিক করতে গিয়ে বিলের পানিতে ডুবে শিক্ষার্থীর মৃত্যু

পিকনিক করতে গিয়ে বিলের পানিতে ডুবে শিক্ষার্থীর মৃত্যু

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি: ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার সদর উপজেলার তিতাস নদীর পাশে লুইসকার বিলে পিকনিক করতে গিয়ে পানিতে ডুবে মো. শ্রাবণ (১৫) নামের এক শিক্ষার্থী নিহত হয়েছে।

রোববার (৪ জুলাই) বিকেলে উপজেলার মজলিশপুর ইউনিয়নের আমিরপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত শিক্ষার্থী শ্রাবণ ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা শহরের পশ্চিম পাইকপাড়া ব্যাংক কলোনি এলাকার মো. রনি খানের ছেলে। সে ব্রাহ্মণবাড়িয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের ৮ম শ্রেনীর শিক্ষার্থী ছিলেন।

জেলা সদর পুলিশ ও নিহতের পরিবার সূত্রে জানা যায় যে, আজ রবিবার (৪ জুলাই) সকালে আমিরপুর গ্রামের লুইসকার বিলে তারা ৩২ জন বন্ধু মিলে নৌকা নিয়ে পিকনিক করতে যায়। নদীতে নতুন পানির ঢেউ দেখে বিলের মধ্যে সবাই মিলে পানিতে নেমে লাফালাফি শুরু করেন। এক পর্যায়ে শ্রাবণও লাফ দেন। প্রথমবার, দ্বিতীয়বার ও তৃতীয়বার লাফ দেওয়ার পর শ্রাবণকে বিলের মধ্যে আর খোঁজে পাওয়া যায়নি।

এরপর তার বন্ধুরা শ্রাবণকে খোঁজে না পেয়ে স্থানীয় জেলেদের জানান। তারাও তাকে উদ্ধার করতে পারেনি। পরে ৯৯৯ এ ফোন পেয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়া ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা উদ্ধারের জন্য লুইসকার বিলে যায়। পরে শ্রাবণকে মৃত অবস্থায় সেখান থেকে উদ্ধার করা হয়।

এ দূর্ঘটনার ব্যাপারে ব্রাহ্মণবাড়িয়া ফায়ার সার্ভিসের লিডার জনাব আব্দুল কাদির জানান, দুপুরে ৯৯৯ এ ফোনের মাধ্যমে তারা জানতে পারেন যে, লইসকার বিলে পিকনিকে গিয়ে একটি ছেলে পানিতে ডুবে গেছে। তাকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। পরে ফায়ার সার্ভিসের ৮জন কর্মী নিয়ে আমি উদ্ধার কাজে যায়৷ দীর্ঘ ১ ঘন্টা অভিযানের পর জেলেদের জালের মাধ্যমে পানির নিচ থেকে শ্রাবণের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়৷

জেলা সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি জনাব এমরানুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, বিলের পানিতে ডুবে একটি ছেলে মারা গেছে। তারা বন্ধুরা নৌকা নিয়ে পিকনিক করতে গেলে বিলের মধ্যে এ ঘটনা ঘটে। পরে জেলা সদরের ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ও সদর মডেল থানার পুলিশ সদস্যরা উদ্ধার কাজে লেগে শ্রাবণের লাশ বিল থেকে উদ্ধার করেন৷ মৃত শিক্ষার্থীর পরিবারের পক্ষ থেকে কোন কারো প্রতি কোন অভিযোগ নেই বলে, শ্রাবণের মরদেহ পরিবারের লোকেরা বাড়িতে নিয়ে গেছেন৷

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Contact Us